শুক্রবার, এপ্রিল ১২, ২০২৪
spot_img

রিশাদ-তানজিদের প্রশংসায় অধিনায়ক শান্ত

শুক্রবার, এপ্রিল ১২, ২০২৪

তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজে শ্রীলংকাকে গুঁড়িয়ে দিয়ে বাংলাদেশ টি–টোয়েন্টি সিরিজ হারের বদলা নিয়েছে। দলীয় সাফল্যের পাশাপাশি ব্যক্তিগত সাফল্যে উজ্জ্বল ছিল অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্তর পারফরম্যান্স। এক সেঞ্চুরিতে ১৬৩ রান করে সিরিজ সেরা হয়েছেন তিনি। এমন সাফল্যের পর সংবাদ সম্মেলনে এসে রিশাদ হোসেনকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন তিনি। বল হাতে অবদান রাখার পর ব্যাট হাতে বিস্ফোরক ইনিংস খেলেছেন রিশাদ। তার ১৮ বলে ৪৮ রানের ইনিংসে ভর করেই বাংলাদেশ ৫৮ বল আগে জয় নিশ্চিত করেছে। ম্যাচ জয়ের নায়ক রিশাদকে নিয়ে শান্ত বলেছেন, ‘প্রথমে তো বোলিংটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। লেগ স্পিনার আমাদের নাই, ওর যদি শেষ নিউজিল্যান্ড সিরিজ থেকে দেখা হয় আমার মনে হয় ভালো বোলিং করছে। সাথে ব্যাটিংটা নিউজিল্যান্ড সিরিজে যেরকম ছিল সেখান থেকে আরও উন্নতি করেছে মনে হয়। তবু অনেক উন্নতির জায়গা আছে। ওটা নিয়ে কাজও করছে। অবশ্যই অনেক খুশি। এ রকম খেলোয়াড় দলে থাকলে তো অবশ্যই ক্যাপ্টেনের জন্য অনেক সহজ হয়।’ লংকানদের বিপক্ষে টি–টোয়েন্টিতে বল হাতে দারুণ নৈপুণ্যের পর ব্যাট হাতেও ঝড় তুলেছিলেন রিশাদ। সিরিজের দ্বিতীয় টি–টোয়েন্টিতে সাত ছক্কায় এক ইনিংসে বাংলাদেশের কোনও ব্যাটারের সবচেয়ে বেশি ছক্কার রেকর্ডটাও নিজের করে নিয়েছেন তিনি। খেলেছেন ৩০ বলে ৫৩ রানের ইনিংস। দুই ওয়ানডের পর শেষ ওয়ানডেতে সুযোগ পেয়ে ব্যাটিং–বোলিংয়ে অবদান রেখেছেন। ফিল্ডিংয়েও ছিলেন দুর্দান্ত। তরুণ এই লেগ স্পিনারের ব্যাটিং–বোলিং–ফিল্ডিং নিয়ে শান্ত বলেন, ‘হ্যাঁ আমার মনে হয় খুব ভালো ফিল্ডার। ব্যাটিংটা উন্নত হচ্ছে আস্তে আস্তে। বোলিংটা অবশ্যই খুব গুরুত্বপূর্ণ। আজকেও যেভাবে বোলিং করেছে মাঝে গুরুত্বপূর্ণ একটা উইকেট নিয়েছে। এটা অবশ্যই দলের জন্য ভালো।’ দারুণ ক্রিকেট খেলার পরও রিশাদকে সতর্কবার্তা দিয়ে রাখলেন অধিনায়ক, ‘ও ভালো করছে। তবু এখনই খুব বেশি এঙাইটেড হওয়ার প্রয়োজন নাই। অনেক উন্নতির জায়গা আছে।’ ঘরোয়া ক্রিকেটে রিশাদের যথেষ্ট সুযোগ না পাওয়া নিয়ে শান্ত আক্ষেপ করে বলেন, ‘স্বাভাবিকভাবে সবাই ঘরোয়া ক্রিকেটে খেলে জাতীয় দলের জন্য সুযোগ পায়। এখন সে জাতীয় দলে খেলে কিন্তু ঘরোয়া ক্রিকেটে সুযোগ পায় না। এ বিষয়টা হতাশাজনক বলবো না, তবে সে যে দলে খেলে তাদের ম্যানেজমেন্টের দেখভাল করা উচিত।’ এদিকে, মারনাস লাবুশেনকে ছাপিয়ে কনকাশন বদলি হিসেবে সবচেয়ে বড় ইনিংস খেলার রেকর্ড গড়েছেন তানজিদ হাসান তামিম। দলের জয়ের ভিত গড়ে যায় তানজিদের ওই ইনিংসেই। তানজিদের ইনিংস নিয়ে শান্ত বলেছেন, ‘খুবই ভালো আমার মনে হয়। যতক্ষণ পর্যন্ত ব্যাটিং করেছে, বিশেষ করে মাঝের ওভারে খুবই ভালো ব্যাটিং করেছে। তবে যেভাবে আউট হয়েছে সেটা নিয়ে খুশি ছিলাম না; কারণ সেট ব্যাটার উইকেটে খেলা শেষ করে আসতে পারলে ভালো হয়। কারণ কেউ ৮০ করেছে, ১০০ করেছে; এটা আসলে ম্যাটার করে না যতক্ষণ না দল জেতে। গুরুত্বপূর্ণ হল যে রানটা কতটা দলের সাহায্য করছে। অবশ্যই শুরুতে ভালো ব্যাটিং করেছে। তবে খেলাটা শেষ করা উচিত ছিল।’

Related Articles

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here